• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার | ২৬শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | হেমন্তকাল | রাত ২:০৬
  • আর্কাইভ

সব জেলার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে বসবে ইএফডি

১২:৪৬ পূর্বাহ্ণ, ডিসে ১০, ২০২০

প্রবাহ ডেস্ক : পণ্য ও সেবা ক্রয় বিক্রয়ের হিসাব সঠিকভাবে রাখতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোতে স্বয়ংক্রিয় হিসাবযন্ত্র (ইলেক্ট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস বা ইএফডি) স্থাপনের কাজ শুরু করেছে। ইতোমধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে ঢাকা ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ১ হাজার ইএফডি মেশিন বসানো হয়েছে। এনবিআর চাইছে পর্যায়ক্রমে দেশের সব সিটি কর্পোরেশন এলাকা ছাড়িয়ে জেলা পর্যায়ের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে এই মেশিনের ব্যবহার বিস্তৃত করতে।

জাতীয় ভ্যাট দিবস উপলক্ষে আজ বুধবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় রাজস্ব ভবনের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ভবিষ্যতে জেলাসহ অর্থনৈতিক কার্যক্রমে অগ্রসরমান এলাকার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানেও ইএফডির ব্যবহার শুরু করা হবে। সঠিকভাবে ক্রয়-বিক্রয়ের হিসাব রাখার জন্য এর ব্যবহার জরুরি।

আগামীকাল বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী জাতীয় ভ্যাট দিবস পালিত হবে। এবার ভ্যাট দিবসের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, ইএফডিতে এনবিআর’।

এর আগে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ইলেক্ট্রনিক ক্যাশ রেজিস্টার মেশিন (ইসিআর) ব্যবহার করা হতো। তবে পন্য বা সেবা বিক্রয়কালে ক্রেতা ইসিআরের মাধ্যমে গ্রাহককে চালান না দেওয়া কিংবা চালান দেওয়া হলেও তাতে অনিয়ম করার সুযোগ ছিলো বলে অভিযোগ রয়েছে। এ সমস্যা সমাধানে এনবিআর ইএফডি ব্যবস্থা চালু করছে। ইএফডির কার্যক্রম এনবিআরের রক্ষিত সার্ভারের সঙ্গে যুক্ত থাকবে। ফলে কোন পন্য বিক্রয় হলে ইএফডির মাধ্যমে ক্রেতাকে চালান পরিশোধ করলে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে এনবিআরে রক্ষিত হবে। ফলে এক্ষেত্রে অনিয়ম করার সুযোগ কমে যাবে।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ইএফডির সঠিক ব্যবহার বড় চ্যালেঞ্জ। তবে ইএফডির মাধ্যমে পণ্য ক্রয় বিক্রয়ের হিসাব রাখায় উৎসাহিত করতে এনবিআর ক্রেতার জন্য পুরস্কার প্রবর্তন করেছে। তিনি বলেন, ইএফডির চালান জমা দিলে প্রতি মাসে লটারির মাধ্যমে ১০১ জনকে পুরস্কার দেওয়া হবে। ফলে পুরস্কারের জন্য ক্রেতারা ইএফডির মাধ্যমে ক্রয় বিক্রয়ে উৎসাহিত হবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

ইএফডি ব্যবহারের ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের কিছু বিড়ম্বনার বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যে কোন নতুন বিষয়ে সমস্যা থাকবেই। এর সমাধানে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া ভ্যাট ব্যবস্থাকে অনলাইন করতে ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের মেয়াদ আরো ছয় মাস বাড়ানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এ বছর করোনার কারনে ভ্যাট দিবস অনাড়ম্বরভাবে পালন করা হবে। র‌্যালি, বড় আকারের সংবর্ধনা,সাজসজ্জাকরণ, স্যুভেনির প্রকাশনাসহ বেশকিছু কাজ বাতিল করা হয়েছে। আগামীকাল রাজস্ব ভবনে ভ্যাট দিবসের ওপর একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com