• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার | ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | শীতকাল | দুপুর ২:৩৯
  • আর্কাইভ

লক্ষ্মীপুরের পার্বতীনগরে অস্ত্রের মুখে যুবককে তুলে নিয়ে হাতুড়ি পেটা

১২:৪৫ অপরাহ্ণ, ডিসে ১৬, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুরের সহিদুর রহমান শিপন (৩২) নামে এক যুবককে তুলে নিয়ে হাতুড়ি পেটা করা হয়েছে। বুধবার (১৫ ডিসেম্বর) রাত ৮ টর দিকে সদর উপজেলার পার্বতীনগর ইউপি চেয়ারম্যানের বাড়ির সামনে থেকে তুলে নিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। পরে প্রায় দেড় কিলোমিটার দূরে নির্জন স্থানে এক ঠেঙ্গা পোলের গোড়ায় নিয়ে গিয়ে তাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে দু’ পা জখম করে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রাত ৯টার দিকে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে।
স্থানীয় চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী রিপন গ্রুপের সন্ত্রাসীরা এ ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত বলে অভিযোগ করেছে আহত শিপন। তিনি পাশ্ববর্তী বাঙ্গাখাঁ ইউনিয়নের রাধাপুর গ্রামের মৃত আবুল কালামের পুত্র।
ঘটনার সময় আহত শিপনের সাথে থাকা হাসান মাহমুদ বলেন, আমি আর শিপন ইউপি চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন ভূঁইয়ার বাড়ির সামনে একটি মোটরসাইকেলে বসে ছিলাম। দুটি মোটরসাইকেল ও একটি সিএনজিযোগে প্রায় ৮/১০ জন লোক অতর্কিত এসে আমাদের ঘেরাও করে শিপনকে তুলে নিয়ে যায়। এ সময় তাদের হাতে অস্ত্র-স্বস্ত্র ছিলো। সন্ত্রাসারী শিপনকে পাশ্ববর্তী একটি নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করে। আমরা গ্রামবাসী দলবদ্ধ হয়ে সেখানে গেলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়ে আসি।
ঘটনার সাথে ইয়াবা ব্যবসায়ী রিপনের অনুসারী আজাদ মেম্বার, দেলোয়ার, আমির, রুবেল, বাবলু জড়িত ছিলো বলে জানান তিনি।
হাসান জানায়, সম্প্রতি রিপনের সাথে শিপনের কথা-কাটাকাটি হয়। এ ঘটনার জের ধরে তাকে তুলে নেওয়া হয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পার্বতীনগর এলাকায় ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকের ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে রিপন। বেশ কয়েকবার পুলিশের হাতে আটক হলেও জামিনে বের হয়ে আসে। শিপনের সাথে তার মাদক ব্যবসার কারবার রয়েছে। মাদকের অর্থের লেনদেন নিয়ে দুজনের মধ্যে ঝামেলা সৃষ্টি হয়। গত কয়কদিন আগে তাদের দুজনের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়েছে।
এর জের ধরে রিপন বাহিনীর সদস্যরা শিপনকে তুলে নিয়ে যায়।
জানতে চাইলে পার্বতীনগর ইউপি চেয়ারম্যান সালাহউদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, আমার বাসার সামনে থেকে শিপন নামে একজনকে তুলে নিয়ে নির্যাতনের বিষয়টি শুনেছি। তবে কি কারণে নিছে, তা জানতে পারিনি।
সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জসীম উদ্দীন বলেন, লেনদেন সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে শিপনকে তুলে নিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে বলে শুনেছি। তবে কেউ থানায় অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে।
Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com