• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • শনিবার | ১৫ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | রাত ৪:৫৫
  • আর্কাইভ

রায়পুরে স্কুল শিক্ষকের কান্ড : শিশুকে জুতাপেটা করে উল্টো থানায় অভিযোগ শিক্ষকের!

১০:০৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৯, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে পিয়াল বিশ্বাস নামের ১৩ বছরের এক শিশুকে জুতাপেটা করে উল্টো তার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছে বিশ্বজিৎ দেবনাথ নামের এক স্কুল শিক্ষক। এ ঘটনায় ওই স্কুল শিক্ষকের বিচার দাবি করেছে এলাকাবাসী। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার চর আবাবিল ইউনিয়নের ক্যাম্পেরহাটে এ ঘটনা ঘটে। হামলার শিকার ওই শিশুকে রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

ঘটনার পর থেকে মানষিকভাবে বিষন্নতায় ভূগছে ওই শিশু। তাঁর দাবি, বিনা দোষে জনসম্মুখ্যে তাকে জুতাপেটা করেছে ওই শিক্ষক।

তবে, শিশুর বিরুদ্ধে সাংবাদিকের কাছে পাল্টা অভিযোগ করে শিক্ষক বিশ্বজিৎ দাবি করেন, তাঁর স্ত্রীকে নিয়ে একটি কুৎসা রটানোকে কেন্দ্র করে তিনি ওই শিশুর গায়ে হাত তুলেছেন। কিন্তু থানায় দেওয়া অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেছেন, ‘‘পিয়াল বিশ্বাস তার উপর হামলা চালিয়ে তাকে জখম করেছে। এবং তাঁর স্ত্রীর কাছ থেকে মূল্যবান জিনিসপত্র ছিনিয়ে নিয়েছে।’’ নিজের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে থানায় ওই শিশুর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ তুলেছেন বলে সাংবাদিকের কাছে স্বীকার করেছেন তিনি। আর এ বিষয়ে পত্রিকায় প্রতিবেদন না করতেও তিনি বার বার অনুরোধ করেন।

বিশ্বজিৎ দেবনাথ চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার আলোনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এবং শিশু পিয়াল বিশ্বাস চর আবাবিল এইচসি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

তবে দুই পক্ষের থেকে রায়পুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিলেও এ বিষয়ে কিছু জানেন না থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তোতা মিয়া।

জানা গেছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কৃষক কাজল বিশ্বাস তার পুত্র পিয়াল বিশ্বাসকে নিয়ে ধর্মীয় একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সেখান থেকে শিক্ষক বিশ্বজিৎ শিশু পিয়ালকে তার বাবার কাছ থেকে ডেকে নেন। পরে তাকে জুতা দিয়ে বেদড়ক মারধর করেন বিশ্বজিৎ। এতে সে আহত হয়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রায়পুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

হাসপাতালে চিকিৎস্যাধীন পিয়াল বিশ্বাস জানান, স্যার আমার নামে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে আমার বাবার কাছ থেকে আমাকে ডেকে নিয়ে পায়ের জুতা খুলে এলোপাতাড়ি মারধর করেন। আমি ওনাকে বার বার বলেছি আমি কোন দোষ করিনি। তারপরেও উনি আমাকে মারতে থাকেন।

পিয়াল বিশ্বাসের পিতা কাজল বিশ্বাস বলেন, আমার শিশু পুত্রকে আমার কাছ থেকে ডেকে নিয়ে বেদড়ক মারধর করা হয়েছে। এখন সে মানষিকভাবে বিষন্নতায় আছে। ঘটনার পরেই আমি বিষয়টি হায়দরগঞ্জ ফাঁড়ি পুলিশকে জানিয়েছি এবং বুধবার দুপুরে রায়পুর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। আমি এ ন্যাক্কারজনক ঘটনার সুষ্টু বিচার দাবি করি।

এদিকে, একই দিন দুপুরে শিশু পিয়ালকে অভিযুক্ত করে রায়পুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে শিক্ষক বিশ্বজিৎ। এ বিষয়ে তিনি বলেন, এলাকায় আমার স্ত্রীর নামে একটি মিথ্যা রটনা প্রচার হয়েছে। আমি খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি পিয়াল এটি রটিয়েছে। এতে আমার মাথা ঠিক ছিলো না। তাই তাকে ছাত্র হিসেবে শাসন করার জন্য সামান্য মেরেছি। ঘটনার পর তারা আমার ওপর হামলার পরিকল্পনা করে এবং আমার নামে থানায় অভিযোগ দেবে বলে শুনেছি। তাই আমি নিজেকে রক্ষায় থানায় অভিযোগ দেই।

ঘটনার সাথে থানায় দায়ের করা অভিযোগের কোন মিল নেই কেন- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি, তাই এমন অভিযোগ দিয়েছি। পিয়ালের পরিবার চাইলে আমি স্থানীয়ভাবে বসে বিষয়টি মিমাংস্যা করতে রাজি আছি।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com