• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার | ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | সকাল ৭:৫৮
  • আর্কাইভ

রামগতির চর আলগী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে সমালোচনার ঝড়!

৭:১২ অপরাহ্ণ, অক্টো ৩১, ২০১৯

প্রবাহ রিপোর্ট : লক্ষ্মীপুরের রামগতির চর আলগী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নব গঠিত কমিটি নিয়ে সমালোচনার ঝড় ওঠেছে। গত ২৭ অক্টোবর রামগতি উপজেলা ছাত্রলীগ ১০ সদস্য বিশিষ্ট ওই ‘বিতর্কিত’ কমিটির অনুমোদন দেয়।

অভিযোগ রয়েছে, নব গঠিত কমিটির সভাপতি মো. সজিব অানোয়ার একজন অছাত্র। এছাড়া তাঁর পিতা একজন বিএনপি নেতা। আর একই কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুল হামিমের পুরো পরিবার জামায়াত-শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত। সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়া ফয়সাল মাহমুদ দুর্জয় একটি অপহরণ মামলার এজাহারভূক্ত আসামী।

অর্থনৈতিক সুবিধা নিয়ে এমন কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে অভিযোগ উপজেলা এবং ইউনিয়নের বিভিন্ন স্তরের আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের সাধারণ নেতাকর্মীদের। আর ‘বিতর্কিত’ এ কমিটি দেওয়ায় তাদের মাঝে ক্ষোভের সৃষ্ঠি হয়েছে।

এ ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন উপজেলা এবং ইউনিয়নের ছাত্রলীগের সাধারণ নেতাকর্মীরা। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি অর্থনৈতিক অভিযোগের বিষয়টি মিথ্যা দাবি করেছেন এবং ইউনিয়ন সভাপতি সজিব আনোয়ারের ছাত্রত্ব আছে বলে জানান তিনি।

সম্প্রতি কমলনগর উপজেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল করিম নিশান তাঁর বক্তব্যে জামায়াত-বিএনপির রাজনৈতিক নেতার কোন ঘনিষ্টজনদের ছাত্রলীগের গুরুত্বপূর্ণ পদে না রাখার ঘোষণা দেন।

জানা গেছে, গত ২৭ অক্টোবর রামগতি উপজেলার চর আলগী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের একটি কমিটি প্রকাশ করে উপজেলা ছাত্রলীগ। রামগতি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আকবর হোসেন সুখী ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাদ্দাম হোসেন ১০ সদস্য বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ ওই কমিটির অনুমোদন দেয়। উক্ত কমিটি গঠনে মোটা অংকের অর্থ নিয়ে সভাপতি পদে সজিব আনোয়ার নামে একজন অছাত্র ও বিএনপি নেতার ছেলেকে বসানো হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় ওঠে। আর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে এক সময়ের শিবির সমর্থিত ও জামায়াত পরিবারের সন্তান আবদুল হামিমকে। সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল মাহমুদ দুর্জয় রামগতি থানায় এজাহারভূক্ত অপহরণ মামলার ১৪ নাম্বার আসামী। (যার অভিযোগ পত্র নং-১১৫, তাং-১০/০৮/১৯)। ওই মামলায় উচ্চ আদালত কর্তৃক আগাম জামিনে আছেন তিনি।

স্থানীয়রা জানায়, সজিব অনোয়ারের পিতা হারুনুর রশিদ চরআলগী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বিএনপির সহ-সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। এছাড়া সে গত তিন বছর আগে লেখা-পড়া ছেড়ে দিলেও ছাত্রলীগের রাজনীতি করে আসছেন। সদ্য সমাপ্ত আহ্বায়ক কমিটির আগের কমিটিতেও তিনি সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন।

অভিযোগের বিষয়ে চর আলগী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ‘বিতর্কিত’ কমিটির সভাপতি মো. সজিব অনোয়ার নিজেকে ছাত্র দাবি করে বলেন, ‘আমি লক্ষ্মীপুর সরকারী কলেজের ডিগ্রী (বিএসএস) ৩য় বর্ষের ছাত্র। সোহেল নামের একটি ছেলে বিভিন্ন মাধ্যমে আমার বিরুদ্ধে অপ-প্রচার চালাচ্ছে। আমি নিজের যোগ্যতা দিয়েই ছাত্রলীগের সভাপতি হয়েছি। এতে কোন ধরণের অর্থনৈতিক লেনদেন হয়নি।’

পিতার বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্তের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমার বাবা একজন হাজী মানুষ। সে কোন রাজনীতি করে না। এছাড়া আমার দুই ভাই যুবলীগ এবং ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলো।’

সজিব নিজেকে কলেজের হোস্টেল ছাত্রলীগের সদস্য দাবি করে বলেন, ‘আমি ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্বে ছিলাম। এছাড়া লক্ষ্মীপুর সরকারী কলেজের হোস্টেল ছাত্রলীগের সম্মানিত সদস্য। আমার ছাত্রত্ব না থাকলে আমি কিভাবে হোস্টেল ছাত্রলীগের দায়িত্বে আছি। ‘

এ বিষয়ে রামগতি উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আকবর হোসেন সুখী বলেন, ‘যোগ্যতা বিবেচনা করে সজিব অনোয়ারকে সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে অর্থনৈতিক কোন সুবিধা নেওয়া হয়নি। তার পরিবার আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত।’ এছাড়া সজিব লক্ষ্মীপুর সরকারী কলেজের ছাত্র বলে জানান তিনি।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com