• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার | ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | সকাল ৬:২৩
  • আর্কাইভ

মেঘনার ভাঙ্গন প্রতিরোধের দাবিতে নদীর তীরে মানববন্ধন

৪:৪১ অপরাহ্ণ, অক্টো ০৫, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার বালুরচর এলাকায় মেঘনার ভাঙন প্রতিরোধের দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। শনিবার সকালে নদীর তীরে ‘বালুরচর রক্ষা মঞ্চ’ এর আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় তারা ভাঙন রোধে সরকারের কার্যকর প্রদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানান।

এছাড়া, স্থানীয় একটি মাদ্রাসার আয়োজনে নদীর তীরে কোরআন খতম ও দোয়ার আয়োজন করা হয়েছে। ভাঙণ রোধে সৃষ্টিকর্তার দোয়া চেয়েছে তারা।

এলাকাবাসী জানান, গেল এক বছর থেকে রামগতি উপজেলার আলেকজান্ডার ইউনিয়নের বালুরচর এলাকায় ভয়াভয় ভাঙন দেখা দিয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি তীব্র আকার ধারণ করেছে। প্রায় ৫ হাজার পরিবার গৃহহীন হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। ভাঙন প্রতিরোধ করা না গেলে উপজেলার অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে।

তারা জানান, ভয়াভহ ভাঙনে ইতোমধ্যে বালুরচর এলাকার বাংলা বাজার পুরোপুরি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। বর্তমানে হুমকির মধ্যে রয়েছে জনতা বাজার, কয়েকটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ইউনিয়ন পরিষদসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা। অচিরেই এগুলো নদীতে হারিয়ে যাবে।

তারা আরও জানান, রামগতি এবং কমলনগর উপজেলার একাধিক স্থানে ভাঙন প্রতিরোধে সরকারীভাবে উদ্যোগ নিলেও এ এলাকাতে এখনো কোন উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি। গেল কয়েকদিন আগে স্থানীয় সংসদ সদস্য ভাঙন কবলিত এলকা পরিদর্শন করে গেছেন। তিনি এলাকাবাসীকে আশ্বস্ত করেছেন। দিন দিনই সাধরণ মানুষ ভিটেমাটি হারা হচ্ছে। তাই দ্রুত সরকারী সহায়তা দাবি করেন নদীর তীরের বাসিন্দারা।

 


আলেকজান্ডার ইউনিয়নের বালুরচরের ৪ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য মো. আকবর হোসেন জানান, তার ওয়ার্ডের প্রায় ১০ কি.মি. এলাকা নদীতে ভেঙে গেছে। এতে কয়েক হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে বেড়ি বাঁধের পাশে অস্থায়ীভাবে অাশ্রয় নিয়েছে।

আলেকজান্ডার ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘ভাঙনে মুখে এরই মধ্যে ইউনিয়নের চরসীতা গ্রাম ও বাংলা বাজার বিলীন হয়ে গেছে। হুমকির মূখে রয়েছে আসলপাড়া, শিকদার পাড়া, উকিলপাড়া ও সুজন গ্রামসহ কয়েকটি গ্রাম। এছাড়া স্থানীয় জনতা বাজারের কাছেই নদী চলে এসেছে।’

তিনি জানান, তার ইউনিয়ন পরিষদের কমপ্লেক্সসহ বালুরচর উচ্চ বিদ্যালয় এবং স্থানীয় তিনটি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা যেকোন সময় নদীতে হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘সরকার দেশের উন্নয়ন করে যাচ্ছে। কিন্তু উন্নয়নগুলো নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। যতক্ষণ পর্যন্ত ভাঙন প্রতিরোধ না করা যায়, ততক্ষণ পর্যন্ত উন্নয়ন কোন কাজে আসবে না।’

 


মানবন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আলেকজান্ডার ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সুমন হাওলাদার, লক্ষ্মীপুর জজ আদালতের আইনজীবি এড. মাহাবুবুর রহমান রিপনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com