• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • শুক্রবার | ১২ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | বর্ষাকাল | রাত ৪:৫৯
  • আর্কাইভ

জমি নিয়ে বিরোধ : রামগতিতে কৃষকের ৩ একর জমির সয়াবিন চারা বিনষ্ট 

১০:৩৪ অপরাহ্ণ, জানু ১১, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদক : জমি নিয়ে বিরোধ থাকায় এক কৃষকের প্রায় তিন একর জমিতে থাকা সয়াবিনের চারা বিনষ্ট করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার চর আলগী ইউনিয়নের চর নেয়ামত গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এতে কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ভূক্তভোগী কৃষক এবং জমির মালিকের।
জানা গেছে, উপজেলার চর আলগী ইউনিয়নের চর নেয়ামত গ্রামের হোসেন আহম্মদের পুত্র আবুল কাশেম চর বাদাম ইউনিয়নের চরসীতা এলাকার গোলাম হোসেন মিয়ার মালিকানাধীন প্রায় তিন একর জমিতে চলতি মৌসুমে সয়াবিনের আবাদ করেন। কয়েকদিনের মাথায় গাছে ফলন আসতো।
আবাদকৃত জমি নিয়ে গোলাম হোসেন মিয়ার সাথে তার ভাতিজা জুলফিকার আলীর সাথে বিরোধ দেখা দেয়। এ বিরোধকে কেন্দ্র করে জুলফিকার জমি দখলে নিতে আবাদকৃত সয়াবিন ক্ষেতে ট্রাক্টর দিয়ে চাষাবাদ করে সয়াবিন গাছ বিনষ্ট করে দেয়।
স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত ৬ জানুয়ারি ভোররাতে হোসেন মিয়ার জেঠাতো ভাই আলী হায়দারের ছেলে জুলফিকার আলী সয়াবিন ক্ষেতে ট্রাক্টর ঢুকিয়ে হালচাষ দেয়। এতে আবাদকৃত সয়াবিন বিনষ্ট হয়ে গেছে।
ভূক্তভোগীদের অভিযোগ, ঘটনার সময় জুলফিকার আলীকে সহযোগীতা করে তার সহযোগী ঝন্টু, লিংকন, ইকবাল হোসেন মনির, পলাশ, আপেল ও সোহাগ।
কৃষক আবুল কাশেম বলেন, আমি ওই জমিতে আমন ধান চাষ করেছি। ধান কাটার আগেই জমিতে সয়াবিন বীজ বপন করি। ধান কেটে নেওয়ার পর সয়াবিন ক্ষেতে সার প্রয়োগ করি। কয়েকদিনে মধ্যেই গাছে ফলন আসতো। কিন্তু এরই মধ্যে জমির বিরোধের অজুহাতে জুলফিকার আমার ক্ষেতের হালচাষ দিয়ে সায়াবিনের চারা বিনষ্ট করে দিয়েছে। এতে আমার কয়েক লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। জমি নিয়ে বিরোধ থাকলেও থাকতে পারে। কিন্তু আমি কি দোষ করেছি, ফসলের কি দোষ?
জমির মালিক গোলাম হোসেন মিয়া বলেন, আমার বাড়ি চর বাদাম ইউনিয়নে। আমার ফসলি জমি পাশ্ববর্তী চর আলগী ইউনিয়নের চর নিয়ামত মৌজায়। ৬২৫ নং খতিয়ানে আমি ৮ একর জমির ওয়ারিশ সূত্রে মালিক। বিগত ৬০ বছর ধরে আমি ভোগ দখল করে আসছি। সেখানে আমাদের বর্গাচাষী ধান, সয়াবিন, ডাল, সবজিসহ বিভিন্ন ফসল চাষ করে আসছে। কিন্তু হঠাৎ জুলফিকার আলী আমার জমিটি তাদের দাবি করে প্রায় তিন একর জমি দখল নেয়ার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। কিন্তু তাদের স্বপক্ষে প্রকৃত কোন কাগজপত্র নেই। প্রায় তিন একর জমিতে থাকা সয়াবিন সে বিনষ্ট করে দিয়েছে। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, জমি নিয়ে বিরোধ করলেও ফসলের সাথে কিসের বিরোধ?
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অভিযুক্ত জুলফিকার আলী বলেন, জমিটি আমাদের। এতোদিন তারা জোপূর্বক দখলে ছিলো। এখন আমরা আমাদের জমি চাষ দিয়ে ডালের আবাদ করেছি। জমিতে কোন সয়াবিন ছিলো না। জমির স্বপক্ষে তাদের কাগজপত্র আছে বলে দাবি করেন তিনি।
Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com