• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার | ১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | রাত ১১:৫১
  • আর্কাইভ

জমি নিয়ে বিরোধ : গভীর রাতে নির্মাণাধীন দোকানঘর ভাংচুর, বসতঘরে তালা

১২:১০ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুর পৌর এলাকার ৮ নং ওয়ার্ডের সমসেরাবাদে জমি নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে রাতের আঁধারে নির্মাণ কাজে পরিকল্পিত হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনকি হামলার পূর্বে অভিযুক্ত প্রতিপক্ষ বসত ঘরেও তালা ঝুলিয়ে দেয় বলে অভিযোগ করেছেন ইব্রাহিম খলিল নামে স্থানীয় এক বাসিন্দা।

অভিযুক্ত আবুল খায়ের নামে প্রতিবেশী ওই প্রতিপক্ষ একই বিরোধে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন অজুহাতে হয়রানি করছেন বলে জানান ভূক্তভোগী। জমি জবর দখলের অসৎ উদ্দেশ্যে হামলা মামলাসহ প্রতিপক্ষের বিভিন্ন কুটকৌশলের কবলে পড়ে পরিজন নিয়ে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বলে জানান তিনি।

জানা গেছে, ৭৫ নং সমসেরাবাদ মৌজার ৪৭০ নং খতিয়ানের ৩৫৯ ও ৪৮৯ নং দাগে ইব্রাহিম খলিল তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমের মালিকানাধীন জমিতে দোকানঘর নির্মাণ করেন। এ নিয়ে আবুল খায়েরের সাথে তার বিরোধ দেখা দেয়। আবুল খায়ের ওই জমির মালিকানা দাবি করে সোমবার দুপুরে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়। এতে সদর থানা পুলিশের সহায়তা নেন তিনি।

গভীর রাতে ইব্রাহিম খলিলের বসত ঘরের দরজায় তালা দিয়ে নির্মাণাধীন দোকান ঘরের পিলার গুঁড়িয়ে দেয় অজ্ঞাতরা। ভূক্তভোগীর দাবি, প্রতিপক্ষ আবুল খায়ের ও তার লোকজন রাতের আঁধারে এ হামলা চালিয়েছে এবং তাদের ঘরে তালা দিয়েছে।

ইব্রাহিম খলিল বলেন, আবুল খায়ের আমাকে বিদেশ নেওয়ার কথা বলে আমার কাছ থেকে ১৫ শতাংশ জমি নেয়। তার কথা আর কাজের সাথে মিল না থাকলেও আমি ওই জমি তাকে রেজিষ্ট্রি করে দিই এবং জমি বুঝিয়েও দিই। বর্তমানে সে ওই জমি ভোগ দখল করতেছে। কিন্তু আবুল খায়েরের লোলুপ দৃষ্টি পড়ে রাস্তা সংলগ্ন আমার স্ত্রীর মালিকানাধীন একখন্ড জমির ওপর। যে জমিটিতে আমার ছেলে দোকান ঘর নির্মাণ করে দীর্ঘদিন ব্যবসা করে আসছে।

সম্প্রতি দোকানঘরটি সংস্কার করে পাকা বিল্ডিং নির্মাণ কাজ শুরু করে। কিন্তু এতে বাধা হয়ে দাঁড়ায় আবুল খায়ের ও তার সাঙ্গরা। গত কয়েকদিন থেকে বিভিন্ন অজুহাতে নির্মাণকাজে বাধা সৃষ্টি করে আসছে তারা।

সর্বশেষ গত সোমবার দুপুরে সদর থানা পুলিশের একজন উপ-পরিদর্শকের কাছে মিথ্যা অভিযোগ করে। ওই পুলিশ কর্মকর্তা এদিন সরেজমিনে গিয়ে আমাদেরকে নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখার মৌখিক নির্দেশ প্রদান করে। সে মতে আমরা নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখি। কিন্তু রাতের আঁধারে সে আমার দোকানঘরের পিলার গুঁড়িয়ে দিয়েছে এবং আমার বসত ঘরের দরজায় তালা ঝুলিয়ে দেয়। এতে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। এ ঘটনায় আমি সঠিক বিচার দাবি করি।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত আবুল খায়ের মুঠোফোনে জানান, আমার ক্রয়কৃত সম্পত্তি ইব্রাহিম খলিল যথাযথভাবে আমাকে বুঝিয়ে না দেওয়ায় আমি জমি বুঝে পেতে আইনের আশ্রয় নিই। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। এদিন পুলিশের কাছে অভিযোগ করলে পুলিশ সরেজমিনে গিয়ে দোকানঘর নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়। রাতের আঁধারে কে বা কারা হামলা করেছে নাকি হামলার নাটক সাজানো হয়েছে- এ বিষয়ে আমার জানা নেই। তাছাড়া মঙ্গলবার বিকেলে ওসি সাহেবের টেবিলে উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে সমঝোতার কথা-বার্তা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সলায়মান বলেন, আবুল খায়েরের অভিযোগ শুনে আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ রেখে উভয় পক্ষকে সমঝোতার পারমর্শ দিই।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com