• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার | ২০শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | সকাল ১০:১০
  • আর্কাইভ

রায়পুরে প্রবাসী পরিবারের উপর হামলা করেছে ইউপি সদস্য

১২:২৬ পূর্বাহ্ণ, এপ্রি ২০, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে তাজুল ইসলাম নামে এক ইউপি সদস্য (ম্বেম্বার) ও তার লোকজনের হামলায় এক প্রবাসীর পরিবারের ৪ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দাবিকৃত চাঁদা না দেওয়ায় তাজুল ইসলাম ঘটনাটি ঘটিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন ভূক্তভোগী পরিবার। শনিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে উপজেলার দক্ষিণ চর আবাবিল ইউনিয়নে গায়েরচর গ্রামে হামিদ আলী ব্যাপারী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, গায়েরচর গ্রামের সৌদি প্রবাসী সৈয়দ আহম্মদের স্ত্রী কামরুন নাহার (৬০), ছেলে অন্তর হোসাইন (২৫), নাতিনি জামিলা আক্তার সুমাইয়া (৯) ও পুত্রবধূ কুলসুমা বেগম (২২)। এরমধ্যে নাহার ও অন্তরকে গুরত্বর আহত অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। রোববার (১৯ এপ্রিল) বিকেলে আওয়ামী লীগ নেতা তাজুল ইসলামের বিরুদ্ধে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অন্তর এ অভিযোগ করেন।

অভিযুক্ত তাজুল ইসলাম উপজেলার দক্ষিণ চরআবাবিল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য (মেম্বার)।

ভূক্তভোগী পরিবার অভিযোগ করে জানায়, দুই মাস আগে সৈয়দ আহম্মদের ছেলে কাতার প্রবাসী জাহিদুল ইসলাম দেশে আসেন। এরপরই আওয়ামী লীগ নেতা তাজুল ইসলাম তার কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। কিন্তু তিনি টাকা দেননি।

তাজুল আবারও টাকা চাইলে জাহিদের পরিবারের পক্ষ থেকে রায়পুর থানায় একটি জিডি করা হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তাজুল ও তার লোকজন জাহিদসহ পরিবারের সদস্যদের মারধরের হুমকি দেয়। শনিবার সন্ধ্যায় জাহিদের ভাই অন্তরকে একটি দোকানে বসা অবস্থায় তাজুল  শাসিয়ে যায়। রাতে তাজুলকে এলাকায় দেখতে পেয়ে ভাইয়ের সঙ্গে উত্তেজিত হওয়ার কারণ জানতে চায় জাহিদ। এতে তাজুল ক্ষিপ্ত হয়ে জাহিদকে থাপ্পড় দেয়।

একপর্যায়ে তাজুল ও তার লোকজন লাঠিসোটা নিয়ে জাহিদকে ধাওয়া করলে তিনি পালিয়ে যান। পরে তাজুল ও তার লোকজন জাহিদের বাড়িতে গিয়ে হামলা চালায়। এসময় জাহিদের মা নাহার, ভাই অন্তর, স্ত্রী কুলসুমা ও ভাগনি সুমাইয়াকে পিটিয়ে আহত করে। এতে নাহার ও অন্তরের হাত-পিঠ-মুখসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে জখম হয়। অন্তরের মাথা পেটে যায়।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত অন্তর জানান, তাদের মারধর করে ঘর নির্মাণের জন্য জমাকৃত ৯ লাখ টাকা তাজুল লুটে নিয়েছে। একই সঙ্গে তারা তার মা ও ভাবির গলা-কান থেকে স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় মামলা করবেন বলে জানান তিনি।

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানতে আওয়ামী লীগ নেতা তাজুল ইসলামের মোবাইলফোনসেটে একাধিকবার কল করেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

এদিকে খবর পেয়ে রাতেই হায়দরগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফারুক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তবে এ ব্যাপারে জানতে তার মোবাইলে একাধিকবার কল করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com