• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার | ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | শীতকাল | দুপুর ২:০৫
  • আর্কাইভ

প্রচারণায় বাধা এবং হুমকির অভিযোগ চররমনী মোহনের স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীদের

৩:২৮ অপরাহ্ণ, ডিসে ১০, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিরুদ্ধে প্রশাসনের বিভিন্ন দফতরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন এক স্বতন্ত্র প্রার্থী। বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) বিকেলে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মনিরুল ইসলাম জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রির্টানিং কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দেন।

চররমনী মোহনে ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আবু ইউসুফ ছৈয়াল। তার বিরুদ্ধে স্বতন্ত্র প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারণায় বাঁধা, কর্মীদের মারধর ও তাদের বাড়ি ঘরে আগুন দিয়ে জ¦ালিয়ে দেওয়ার হুমকির অভিযোগ আনা হয়।

অভিযোগকারী স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বিএনপি নেতা মনিরুল ইসলাম সরকার আনারস প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে নৌকার কর্মীরা আমার কর্মীদের মারধর করে পোষ্টার ছিনিয়ে নিয়েছে। একই দিন সন্ধ্যায় মাইকে নির্বাচনী প্রচারণা চালানোর সময় নৌকার কর্মীরা আমার নির্বচানী মাইক ভাঙচুর করে। তারা আমার কর্মীদের হুমকি দেয়- ‘প্রচারণা চালালে হাত-পা কেটে দেওয়া হবে।’

এর আগে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী নির্বাচনী প্রতীক বরাদ্দে আগে একটি নির্বাচনী জনসভায় প্রকাশ্যে ইসলামী আন্দোলনের প্রার্থীসহ স্বতন্ত্র প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নিতে হুমকি দেয়। নির্বাচনে তার ১৫-২০ লাখ টাকা খরচ হবে বিধায় বিনাভোটে চেয়ারম্যান হতে চেয়েছেন তিনি। তবে তার হুমকির পরেও ওই ইউনিয়নে আরও তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রদিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু ইউসুফ ছৈয়াল হত্যা, চাঁদাবাজি, নির্যাতনসহ বেশ কয়েকটি মামলা আসামী।

মনিরুল ইসলাম নৌকা প্রতীকের ইউসুফ ছৈয়ালের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগে জানান, বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আনারস প্রতীকের কর্মীরা নির্বাচনী পোষ্টার লাগানোর জন্য নৌকার প্রার্থী ইউসুফ ছৈয়ালের বাড়ির সামনে দিয়ে যাবার সময় ছৈয়ালের লোকজন তার কর্মীদের উপর আক্রমণ করে। এতে কয়েকজন কর্মী আহত হয়। এ সময় তাদের কাছে থাকা পোষ্টার, লিফলেট, ফেস্টুন ছিনতাই করে নেয় হামলাকারীরা। নৌকার কর্মীরা তাদের হুমকি দেয় এবং প্রচারণা চালানো থেকে সরে যেতে বলে।

তিনি আরও উল্লেখ করেন, গত ২ ডিসেম্বর ইউসুফ ছৈয়াল ইউনিয়নের মজুচৌধুরীর হাটে নির্বাচনী সভায় প্রকাশ্যে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের নির্বাচন থেকে সরে যেতে বলে। তার হুমকির কারণে আমার পক্ষে প্রচারণা চালানো সম্ভব নয়। আমি এবং আমার কর্মীরা নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী নৌকা প্রতীকের আবু ইউসুফ ছৈয়াল বাংলানিউজকে বলেন, এলাকায় মনিরের কোন ভোট নেই। সে বিএনপি করে। ইউনিয়নের সব ভোট নৌকার। মনির ভোট করার জন্য মাঠে নামে নি, সে শুধু শুধু ঝামেলা সৃষ্টি করতে এসেছে। এর আগেও মনিরের পিতা ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করে সামান্য কয়েক ভোট পেয়েছে। এবারও আশাকরি মনির জামানত তুলতে পারবে না। তাই তার প্রচারণায় বাঁধা দেওয়া বা তাকে হুমকি দেওয়ার প্রশ্নই আসেনা।

এ ব্যাপারে চররমনী মোহন ইউনিয়নের দায়িত্বপ্রাপ্ত রির্টানিং কর্মকর্তা ও উপজেলা সমবায় অফিসার দেবেশ কুমার সিংহ বলেন, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মনিরুল ইসলামের একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত : গত ১ ডিসেম্বর নির্বাচনী এক সভায় নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু ইউসুফ ছৈয়াল প্রতিপক্ষ ইসলামী আন্দোলনের মনোনীত প্রার্থী সালেহ আহম্মদকে নির্বাচন থেকে সরে যেতে প্রকাশ্যে হুমকি দেন। এ হুমকির একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এতে তিনি বলেন, প্রতিদ্বন্দ্বি স্বতন্ত্র প্রার্থীরা নির্বাচন থেকে সরে গেলে ভোট ছাড়াই তিনি চেয়ারম্যান হবেন। এতে তার ১৫-২০ লাখ টাকা বেঁচে যাবে। ওই টাকা এলাকার উন্নয়নে এবং মসজিদ মাদরাসায় দান করবেন। আর নির্বাচন থেকে সরে না গেলে তাদের সাথে শত্রুতা সৃষ্টি হবে বলে হুশিয়ারী দেন। এ ঘটনার পর গত ২ ডিসেম্বর ‘‘ভোট ছাড়াই চেয়ারম্যান হতে চান নৌকার প্রার্থী, প্রকাশ্যে হুমকি’’ শিরোনামে বাংলানিউজে সংবাদ প্রকাশিত হয়।

আগামী ২৮ নভেম্বর লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়নসহ ১৫ টি ইউপিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com