• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • রবিবার | ২৮শে নভেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | হেমন্তকাল | সকাল ৯:২৩
  • আর্কাইভ

লক্ষ্মীপুর পৌর নির্বাচন : সুষ্ঠ ভোট নিয়ে ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলীর শঙ্কা

৪:৫৪ অপরাহ্ণ, নভে ০৮, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুর পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডে বিগত দিনের উন্নয়ন কর্মকান্ডের ফলে কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলীর জনপ্রিয়তা ব্যাপক বেড়েছে। আর তাই আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য লক্ষ্মীপুর পৌরসভা নির্বাচনে এবারও একই ওয়ার্ড থেকে কাউন্সিলর প্রার্থী হয়েছেন তিনি। তিনি ওই ওয়ার্ডের টানা দুই বারের নির্বাচিত কাউন্সিলর।

স্থানীয় আপামর মানুষের ভালবাসা অর্জন করে জনপ্রিয় হয়ে উঠা ওই কাউন্সিলর প্রার্থী ফের জনগণের দ্বারে দ্বারে ছুটে চলছেন বিজয়ের প্রত্যাশায়। সাড়াও পাচ্ছেন ব্যাপক। অথচ তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি মহল ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে বিভিন্নভাবে চক্রান্তে লিপ্ত হয়ে পড়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া যায়।

অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা তাকে নির্বাচন থেকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধমকি প্রদান সহ তার সমর্থকদের মাঝে আতংক ছড়িয়ে দিয়েছে। এছাড়া নির্বাচনের দিন ভোটকেন্দ্রে অপপ্রভাব বিস্তার করে ভোট ছিনিয়ে নেওয়ার হুমকিও দিচ্ছে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা। এ অবস্থায় ওই ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলী নিরাপত্তাহীনতা সহ তার ওয়ার্ডের দুইটি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে মর্মে আশংকা প্রকাশ করছেন। এ বিষয়ে তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দিবেন বলে জানান।

কাউন্সিলর প্রার্থী মোহাম্মদ আলী সংবাদকর্মীদের কাছে অভিযোগ করে বলেন, আমি বিগত দিনে কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচিত হয়ে এলাকার জনগণের জন্য কাজ করে গেছি। পৌরসভা থেকে যতটুকু বরাদ্দ নিতে পেরেছি, তার সবটুকু দিয়ে উন্নয়নমূলক কাজ করেছি। বিপদে-আপদে এলাকার মানুষের পাশে ছিলাম। জনগণের যেকোন ধরণের সহযোগীতায় তাদের পাশে গিয়ে দাঁড়িয়েছি। ফলে আমার জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পেয়েছে। এ জনপ্রিয়তাকে পুঁজি করে আমি আবার নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি। কিন্তু আমার আমাকে ঠেকানোর জন্য উঠেপড়ে লেগেছে একটি মহল। কিন্তু ওয়ার্ডে যদি সুষ্ঠভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়, তাহলে ভোটাররা আমাকে ভোট দিয়ে পুনরায় নির্বাচিত করবে। তাই আমি আগামী ২৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ভোট যেন সুষ্ঠ হয়, প্রশাসনের কাছে সে কামনা করি।

এসময় তিনি জানান, ৯ নম্বর ওয়ার্ডে ৫ হাজার ২১৯ জন ভোটার। ওয়ার্ডের পুরুষ এবং নারী ভোটারদের ভোট প্রদানে জন্য পৃথক দুটি কেন্দ্রের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ কেন্দ্র হলো লামচরী আজিজিয়া মাদ্রাসা। মহিলা কেন্দ্র লক্ষ্মীপুর সরকারী পৌর প্রাথমিক বিদ্যালয়। পুরুষ ভোটার সংখ্যা দুই হাজার ৬৮৮ জন এবং নারী ভোটার দুই হাজার ৫২৮ জন।

তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, ওয়ার্ডের নারী ভোট কেন্দ্রটি ৫০ ভাগ ঝুঁকিপূর্ণ এবং পুরুষ ভোট কেন্দ্রটি প্রায় ৮০ ভাগ ঝুঁকিপূর্ণ। প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীরা ভোট কেন্দ্রে প্রভাব বিস্তার করতে পারে। এতে ভোটারদের নির্বিঘেœ ভোট প্রদানে বাধাগ্রস্ত হবে। তাই প্রভাবমুক্ত নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে আমি ভোট কেন্দ্র ঘিরে অতিরিক্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়নের দাবি জানাই। প্রশাসন সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে, আমি সে প্রত্যাশা করছি।

স্থানীয়রা জানায়, কাউন্সিলর মোহাম্মদ আলীর সময়কালে এলাকায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড হয়েছে। সেই উন্নয়ন কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছেন তিনি। ওয়ার্ডবাসীর সাথে আচার আচরণে ইতিবাচক থাকায় তার জনপ্রিয়তা বেড়েছে। আর সেটাকেই পুঁজি করে তিনি পুনরায় প্রার্থী হয়েছেন। তবে তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে চক্রান্ত শুরু করেছে প্রতিহিংসাপরায়ন চক্র। পৌর ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে সাতজন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

প্রসঙ্গতঃ লক্ষ্মীপুর পৌরসভায় মেয়র ও কাউন্সিলর পদে নির্বাচনকে ঘিরে প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীরা এরই মধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। ইতিমধ্যে মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাই সম্পন্ন হয়েছে। প্রার্থীদের মধ্যে আগামী ১২ নভেম্বর প্রতীক বরাদ্ধ দেওয়া হবে। এরই মধ্যে প্রার্থীরা নিজ নিজ এলাকার ভোটারদের কাছ থেকে দোয়া ও সমর্থন চেয়ে নিচ্ছেন।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com