• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • বুধবার | ২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | বর্ষাকাল | দুপুর ২:৪২
  • আর্কাইভ

লক্ষ্মীপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ২৯ তম বার্ষিক সদস্য সভা

১:৫২ অপরাহ্ণ, জানু ৩০, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক : ‘শেখ হাসিনার উদ্যোগ, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ; মুজিব বর্ষ, পল্লী বিদ্যুতের সেবা বর্ষ’ এ প্রতিপাদ্য নিয়ে লক্ষ্মীপুর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির ২৯ তম বার্ষিক সদস্য সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে সমিতির কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সমিতির বার্ষিক প্রতিবেদন ও আর্থিক বিবরণী প্রকাশ করে সমিতি পরিচালনা বোর্ড।

সমিতি পরিচালনা বোর্ডের সভাপতি ও এলাকা পরিচালক মো. মনিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে এতে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের উপ-পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম,  লক্ষ্মীপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মো. শাহজাহান কবীর, নোয়াখালী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার প্রকৌশলী গোলাম মোস্তফা, সমিতি পরিচালনা বোর্ডের সহ সভাপতি ও মহিলা পরিচালক তুহিনা আক্তার, সচিব ও এলাকা পরিচালক মোহাম্মদ মঈনুল হোসেন, কোষাধ্যক্ষ ও এলাকা পরিচালক মো. আবদুল করিম, এলাকা পরিচালক কাজী মো. ফরিদ, মাওলানা মাহফুজুর রহমান, মো. মাহবুবুল আলম, মহিলা পরিচালক লুৎফুন নাহার চৌধুরী, শাহানারা বেগম, পরিচালক সদস্য  মো. শামছুল আলম, মো. ছায়ফুল আলম প্রমুখ।

এছাড়া অন্যান্য অতিথির মধ্যে ছিলেন, লক্ষ্মীপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ডিজিএম (রামগতি) আবু বকর সিদ্দিক, ডিজিএম (রায়পুর) শেখ মনোয়ার মোরশেদ, ডিজিএম (রামগঞ্জ) মো. নুরুল আলম ভুঁইয়া, এজিএম কামাল হোসেন, মো. মহিউদ্দিন, মো. আশিকুল ইসলাম, মুহাম্মাদ সৌরাদ উদ্দিন সাদি, মো. এমায়েত হোসেন, মো. আমিনুল ইসলাম, এস এম জি এলমান শাহ, এএসএম রুহুল আমিনসহ সমিতির বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং সমিতির সদস্যবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে বিনাপ্রতিদ্বন্ধীতায় নির্বাচিত এলাকা পরিচালকদের নাম প্রকাশ করেন নির্বাচন কমিশনের সদস্য ও সমিতির এ জি এম (সদস্য সেবা) এস এম জি এলমান শাহ। পরে সমিতির নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধকারী বিভিন্ন স্তরের বাচাইকৃত গ্রাহকদের পুরস্কৃত করা হয়। অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন সমিতির সহকারী হিসাব রক্ষক মো. ইলিয়াছ ও বিলিং সহকারী খাইরুন নাহার।

সমিতির জিএম মো. শাহজাহান কবীর বলেন, ২০১৯-২০ অর্থ বছরে ১২শ’ কি.মি. লাইন নির্মাণের মাধ্যমে ৬০ হাজার নতুন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে লক্ষ্মীপুর জেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়ন করা হবে। গেল বছরে ৩৯৫৮৬৪ জন গ্রাহককে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি একটি সেবাধর্মী প্রতিষ্ঠান। বিদ্যুৎ লাইন হতে বিদ্যুৎ চুরি বা অবৈধ সংযোগ একটি বড় সমস্যা। গ্রাহদের সহায়তায় বিদ্যুৎ চুরি কমাতে পারে। তাই এতে গ্রাহকদের উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানান তিনি। তিনি বলেন, বিদ্যুৎ বিক্রয় লব্দ অর্থ সমিতির আয়ের প্রধান উৎস। এ অর্থ থেকেই বিদ্যুৎ ক্রয় এবং সমিতির রক্ষণাবেক্ষণের যাবতীয় ব্যয় বহন করতে হয়। তাই নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের জন্য গ্রাহকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সভায় সমিতির সভাপতি মো. মনিরুল ইসলাম তাঁর বক্তব্যে বলেন, গ্রাহক সদস্য সমিতির মালিক এবং সেবক। তাই সমিতিকে বাঁচাতে হলে অবৈধ বিদ্যুৎ ব্যবহার রোধ, বৈদ্যুতিক লাইন হতে কন্ডাক্টর, ট্রান্সফরমার চুরি রোধ করতে হবে। বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম চুরি রোধ হলে একদিকে মূল্যবান জাতীয় সম্পদ রক্ষা পাবে এবং গ্রাহক ভোগান্তি থেকে রক্ষা পাবে। চুরি রোধে পুলিশ, সমিতির পাশাপাশি গ্রাহক-সদস্যদের সম্মিলিত কাজ করতে হবে।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com