• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার | ২০শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | সকাল ১০:৪৬
  • আর্কাইভ

লক্ষ্মীপুরে ‘অভিযুক্ত রাজাকার’ হামর্দদের এমডি ইউসূফ হারুনকে নির্দোষ প্রমাণে এমপির সংবাদ সম্মেলন

১১:২৮ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টে ১৫, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক : হামদর্দ ল্যাবরেটরিজ (ওয়াক্‌ফ) বাংলাদেশ-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ‘কথিত রাজাকার’ ড. হাকীম মো. ইউছুফ হারুন ভূঁইয়ার পক্ষে লক্ষ্মীপুর-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য একেএম শাহজাহান কামাল সংবাদ সম্মেলন করেছেন। আওয়ামী লীগের এমপি শাহজাহান কামাল সাবেক বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী।

শনিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাতে জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের ব্যানারে শহরের ফুড গার্ডেন পার্টি সেন্টারে এ আয়োজন করা হয়। রাজাকারদের বিরুদ্ধে জেলার রায়পুরে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের তদন্ত চলার খবরে ‘হামদর্দের অর্থায়নে’ এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয় বলে অভিযোগ ওঠেছে।

এ প্রসঙ্গে নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক চারজন মুক্তিযোদ্ধা জানায়, আওয়ামী লীগের কয়েক ব্যক্তি পকেট ভারি করে জামায়াত নেতা ইউসূফ হারুনকে ‘নির্দোষ’ প্রমাণ করতে উঠে পড়ে লেগেছেন। তারা হামদর্দে চিনিসহ বিভিন্ন পণ্য সরবরাহ করে আসছেন বলেও বলাবলি হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সিরাজ উল্যা মনা বাকশাল, রাজ্জাকুল হায়দার চৌধুরী, সার্জেন্ট (অবঃ) আবুল খায়ের প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, ইউসূফ হারুন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন কিনা আমরা জানি না। তিনি রাজাকার ছিলেন কিনা তাও জানা নেই। কারণ রাজাকারের তালিকায় এ নাম কখনও আমরা দেখিনি। মুক্তিযোদ্ধারা সবসময় সত্য কথা বলে। শহীদ আবদুল হালিম বাসুকে মুক্তিযুদ্ধের সময় রাজাকার শাহ আলম ও নজরুল গুলি করে হত্যা করেছে। তখন মুক্তিযোদ্ধাদের গুলিতে ঘটনাস্থলে তারাও মারা যায়। ইউসূফ হারুন এ হত্যাকা-ের সঙ্গে জড়িত নয়।

জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) সকালে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের ডেপুটি ডাইরেক্টর মো. হেলাল উদ্দিন রাজাকারদের বিরুদ্ধে তদন্তে আসেন। এসময় তিনি রায়পুরের জেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধা ‘রাজাকার’ ইউসূফ হারুনের বিরুদ্ধে সাক্ষী দেন। এসময় তদন্ত কর্মকর্তার কাছে প্রয়োজনীয় তথ্য-উপাত্ত সরবরাহ প্রদান করা হয়।

রায়পুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডার নিজাম উদ্দিন পাঠান বলেন, আমি ইউসূফ হারুনকে মুক্তিযোদ্ধা আবদুল হালিম বাসুকে গুলি করতে দেখেছি। তার গুলিতেই বাসু শহীদ হয়েছিল। আমরা রাজাকার ইউসূফ হারুনের দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করছি।

প্রসঙ্গত, রায়পুর উপজেলা কমান্ডারসহ বিভিন্ন ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধারা হামদর্দের এমডি ইউসূফ হারুনের বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধে মানবতা বিরোধী অপরাধের অভিযোগ তোলে। এ নিয়ে সম্প্রতি তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে তোলপাড় শুরু হয়।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com