• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • রবিবার | ১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | বসন্তকাল | সকাল ৬:৫০
  • আর্কাইভ

লক্ষ্মীপুরের মজু চৌধুরীরহাটে হোটেল ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে নারীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ

৮:১৩ অপরাহ্ণ, নভে ০৫, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ লক্ষ্মীপুরে রিপন হোসেন নামে এক খাবার হোটেল ব্যবসায়ীসহ দুই জনের বিরুদ্ধে স্বামী পরিত্যক্ত নারীর শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) দুপুরে ওই নারী বিচারের দাবিতে সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন। তবে অভিযুক্ত রিপন জানিয়েছেন, তিনি এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না।

অভিযুক্ত রিপন সদর উপজেলার চররমনী মোহন ইউনিয়নের মজুচৌধুরীর হাটের ক্যাফে জিহাদ হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্টের স্বত্ত্বাধিকারী। অপর অভিযুক্ত মো. হেলাল ওরফে হেজু একই হোটেলের বাবুর্চি। হোটেলের পেছনেই বাবার বাড়িতে ছেলে-মেয়েকে নিয়ে ভুক্তভোগী নারী বসবাস করে আসছেন।

ভুক্তভোগী নারী অভিযোগ করে জানান, তার স্বামী অভিযুক্ত রিপনের দোকানের মিষ্টির তৈরি করতো। প্রায় ৯ মাস আগে ভুক্তভোগী তার স্বামীর সঙ্গে আইন মোতাবেক তালাক হয়। কাজের জন্য তার বাবা-মা একই ইউনিয়নের মেঘনার চরে থাকেন। এক ছেলে ও এক মেয়েকে তিনি নিয়েই ঘরে তিনি একাই থাকে।

গত ৩ নভেম্বর রাত প্রায় ৩ টার দিকে কে বা কারা জানালা দিয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় তার শরীরে হাত দেয়। এতে তিনি (নারী) জেগে উঠে ঘরে আলো জ্বালিয়ে ঘরের দরজা খুললেই রিপন ও হেলাল ঘরে ঢুকে পড়ে। একপর্যায়ে রিপন তাকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। পরে তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় তিনি লক্ষ্মীপুর আদালতে মামলা দায়ের করবেন বলে জানিয়েছেন।

অভিযুক্ত হেলাল জানান, তিনি সবসময় রাতে বাড়িতে চলে যান। গত কয়েকদিন তিনি ওই নারীর বাড়ির পাশেই অন্যান্য কর্মচারীদের জন্য নির্ধারিত একটি ঘরে (স্টাফ হোম) থাকেন। রাতে সিগারেট আনতে তিনি ঘর থেকে বের হন। দোকান থেকে সিগারেট নিয়ে স্টাফ হোমে যাওয়ার পথে ওই নারী তার পথ আগলে ধরে। একপর্যায়ে চিৎকার দিয়ে আশপাশের লোকজন এনে কোন কারণ ছাড়াই ওই নারী তাকে মারধর করে। তবে তিনি কোন অন্যায় করেনি বলে জানিয়েছেন।

অভিযোগ অস্বীকার করে ব্যবসায়ী মো. রিপন বলেন, আমি ঘটনার দিন রাতে তাড়াতাড়ি বাড়িতে যায়। হেলালকে মারধরের ঘটনা একদিন পর শুনেছি। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত।

চররমনী মোহন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু ইউছুফ ছৈয়াল বলেন, ভূক্তভোগী নারী আমার কাছে অভিযোগ দিয়েছে। আমি তাকে মামলা করার পরামর্শ দিয়েছি।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com