• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • শনিবার | ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | শীতকাল | রাত ১০:১৮
  • আর্কাইভ

লক্ষ্মীপুরের ভবানীগঞ্জের প্রদর্শনীর আশায় বীজ বপন করেনি কৃষকরা, ভূক্তভোগীদের মানববন্ধন

৯:০১ অপরাহ্ণ, জানু ০৯, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের কৃষি যান্ত্রিকরণ প্রদর্শনী বরাদ্দ পাওয়ার আশায় অন্য কোন বীজ বপন করেনি লক্ষ্মীপুরের ভবানীগঞ্জের চরমনসা গ্রামের কৃষকরা। সংশ্লিষ্টরা কৃষকদের ২শ’ একর জমি থেকে ৫০ একর জমি নির্বাচন করে এখন প্রদর্শনী প্লট অন্যস্থানে দেওয়ার পাঁয়তারা করার অভিযোগ করেছে ভূক্তভোগী কৃষকরা। এতে কৃষকদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। প্রতিবাদে শুক্রবার তারা এলাকায় মানববন্ধনও করে।

এদিকে, চলতি বছরের ২ জানুয়ারী উপজেলার পশ্চিম চরমনসা গ্রামের স্কিম প্রজেক্ট ম্যানেজার কৃষকদের পক্ষে প্রদর্শনী প্লট বরাদ্দ পাওয়ার জন্য কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিবের কাছে লিখিত আবেদন করেছেন।

আবেদন সূত্র ও স্থানীয় কৃষকরা জানান, ২০১৯-২০ অর্থ বছরে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের রাজস্ব প্রকল্পের আওতায় প্রদর্শনী প্লট বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এতে ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডস্ত চরমনসা-চরভূতা গ্রামের মৃত মফিজ উল্যার ছেলে মো. বাবুলের ইরিকেশনকৃত প্রজেক্টের ২শ’ একর জমি থেকে ৫০ একর জমি নির্বাচন করে কৃষি অফিস। এ অনুয়ায়ী মাঠ কর্মকর্তা খালেক, ফারুক ও উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসান ইমাম জমি পরিদর্শন করে সন্তোষ প্রকাশ করে। পরবর্তীতে কৃষকদের ৫০ একর জমির প্রদর্শনী খামারে নকশা করেন এবং বীজতলা ও গোবরের সার ব্যবস্থা করা ও প্রদর্শনী প্লটের মালামাল রাখর জন্য একটি ঘর নির্মাণের নির্দেশ দেন।

কৃষকরা জানায়, কৃষি অফিসার হাসান ইমাম প্রদর্শনীর জন্য আশ^স্ত করায় তারা এবার অন্য কোন বীজ বপন করেনি। কিন্তু একটি চক্র সংশ্লিষ্টদের ম্যানেজ করে অন্যস্থানে প্রদর্শনী বরাদ্দ নেওয়ার পাঁয়তারা করছে। তাদের দাবি- অন্যকোন স্থানে প্রদর্শণী প্লটের বরাদ্দ হলে কৃষকদের অপূরণীয় ক্ষতি হবে এবং পরবর্তীতে জমি চাষাবাদ করা সম্ভব হবে না।

উপজেলা কৃষি সহকারী অফিসার বলেন, প্রদর্শনী প্লটের জন্য ৩টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। যেখানে ভালো হবে সেখানে করা হবে।

 

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com