• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার | ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | সকাল ৮:০৮
  • আর্কাইভ

রায়পুরে কাউন্সিলর প্রার্থীকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে চাপ!

৮:৫৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রু ২৭, ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভা নির্বাচনে ৮ নং ওয়ার্ডে আবুল হোসেন নামের এক কাউন্সিলর পদপ্রার্থীকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর হুমকির অভিযোগ উঠেছে। এ সময় তার নির্বাচনী কার্যালয়েও হামলা চালিয়েছে বলে জানা গেছে।
নির্বাচনের একদিন আগে শনিবার বিকেলে ওই ওয়ার্ডের মীরগঞ্জ সড়কে এ ঘটনা ঘটে। আগামীকাল রবিবার সকাল ৮ টায় সেখানে ভোট গ্রহণ শুরু হবে।
ঘটনার প্রতিবাদে অনান্য ওয়ার্ডের বেশ কয়েকজন কাউন্সিলর প্রার্থী রায়পুর থানার সামনে অবস্থান নেয়। এ ঘটনায় পৌর এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।
জানা গেছে, পৌরসভা নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী হয়েছেন বিএনপি কর্মী মো. আবুল হোসেন (পাঞ্জাবি)। একই ওয়ার্ডে কাউন্সিল পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন বর্তমান কাউন্সিলর আবদুল কাদের রিয়াজ (টেবিল ল্যাম্প)।
মো. আবুল হোসেন অভিযোগ করে বলেন, তাকে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর অপচেষ্টা চালানো হয়েছে। এ লক্ষ্যে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী টেবিল ল্যাম্পের লোকজন  তাকে চাপ প্রয়োগ করছে।
দুপুরে তিনি তার কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন। এসময় রিয়াজ মুন্সি (টেবিল ল্যাম্প) ও যুবলীগ নেতা মামুনসহ অজ্ঞাত ৭/৮ জন দুর্বৃত্ত এসে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করতে হুমকি দিয়ে তাকে লক্ষ্য করে পানির বোতল ছুড়ে মারে এবং তার নির্বাচনী কার্যালয়ে গিয়ে হামলা চালায়। এতে সাবেক কাউন্সিলর ও তার ভাই আমিন উল্যা কিছুটা আহত হন।
এর প্রতিবাদে পৌর আওয়ামীলীগের আহ্বায়ক কাজী জামশেদ কবির বাকী বিল্লাহর নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন কাউন্সিলর প্রার্থী থানার মূল ফটকে অবস্থান নেয়।
এ সময় তারা নির্বাচনী এলাকায় বহিরাগত লোকজনের আগমন ঠেকাতে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করে নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি জানান।
কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল কাদের রিয়াজ বলেন, বিএনপি নেতা আবুল হোসেন মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে বিভ্রান্তি করছেন। এ বিষয়ে আমি কিছুই জানিনা।
কাজী জামশেদ কবির বাকী বিল্লাহ বলেন, হামলার ঘটনাটি আমরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, থানার ওসি এবং দলীয় নেতৃবৃন্দকে জানিয়েছি। এ বিষয়ে আমরা থানায় লিখিত অভিযোগ দেব।
রায়পুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল জলিল বলেন, পরিস্থিতি শান্ত আছে। অজ্ঞাতদের আসামি করে কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হোসেন সাধারন ডায়রি করেছেন। দুই প্রার্থীকে নিয়ে বিষয়টি সমাধানের জন্য জেলা ও উপজেলা  আ’লীগ নেতাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com