• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • বৃহস্পতিবার | ২২শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | গ্রীষ্মকাল | সকাল ৯:৫১
  • আর্কাইভ

রামগতির চরে ২৮ গরু-মহিষ লুট, আসামি ভোলার ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৪৬

৯:১৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ১০, ২০২১

অভিযুক্ত ভোলার চাঁদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকরুল আলম

নিজস্ব প্রতিবেদক : লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলার মেঘনা নদী বেস্টিত চর আবদুল্লাহ থেকে ২৮টি গরু, ছাগল, মহিষ লুটে নিয়েছে জোরদার লাঠিয়াল বাহিনী। এসময় অন্তত ১০ বাড়িতে হামলা-চালিয়ে দুই গৃহবধূকে মারধর ও স্বর্ণসহ ২ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় বুধবার (১০ মার্চ) দুপুরে লক্ষ্মীপুর সিনিয়ির জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে (রামগতি অঞ্চল) মামলা দায়ের করা হয়। এতে পাশ্ববর্তী ভোলার তজমুদ্দিন উপজেলার চাঁদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকরুল আলম জাহাঙ্গীরসহ ৪৬ জনকে আসামি করা হয়। বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) সন্ধ্যার এ তান্ডবেব ঘটনায় এখনও হুমকির মুখে রয়েছে ক্ষতিগ্রস্থরা।

আদালতের বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেসটিগেশন (পিবিআই) নোয়াখালীকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। বিষয়টি তদন্ত করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন বাদীর আইনজীবী সৈয়দ মোহাম্মদ সামছুল আলম।

অভিযোগ সূত্র জানায়, চাঁদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকরুল আলম জাহাঙ্গীরসহ জোরদার লাঠিয়াল আসামিরা মুক্তিযোদ্ধা বাজারে সংঘঠিত হয়ে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রসহ বৃহস্পতিবার (৪ মার্চ) সন্ধ্যায় রামগতির চরআবদুল্লাহর দক্ষিণ মাথায় তেলির চরের জমি দখলে নিতে আসে। এসময় তাদের বাধা দিলে মহিউদ্দিন মাঝিরসহ অন্তত ১০ বাড়িঘরে হামলা-ভাংচুর চালিয়ে স্বর্ণসহ ২ লক্ষাধিক টাকার মালামাল লুটে নেওয়া হয়। মারধর ও শ্লীলতাহানী করা হয় গৃহবধূ নুরজাহান ও জোসনাকে। একপর্যায়ে স্থানীয় লোকজন সংগঠিত হলে থাকলে আসামিরা ফাঁকাগুলি ছুঁড়ে আতংক সৃষ্টি করে। যাওয়ার সময় তারা বিভিন্ন আকারের ২২ টি গরু, ৪টি মহিষ ও২ টি ঘাসি নিয়ে যায়।

চর আবদুল্লাহর ইউনিয়ন পরিষদের তিনজন সদস্য জানায়, রামগতির তেলির চর ও চর মুজাম পাশাপাশি। তজমুদ্দিনের চাঁদপুর ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর অস্ত্রশস্ত্র সজ্জিত লাঠিয়াল গঠন করে দীর্ঘদিন ধরে ওই চরগুলো দখল করে ভোগ করছে। প্রায়ই তারা তেলিরচর এলাকা দখলে নিতে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। ব্যর্থ হয়ে প্রত্যেকবারেই চরের বাসিন্দাদের ক্ষতি করে। বহিরাগত লাঠিয়াল বাহিনীর হুমকির মুখে সবসময় আতংকে থাকতে হয়।

মামলার বাদী চর আবদুল্লাহ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য (মেম্বার) মো. টিপু বলেন, জাহাঙ্গীরসহ আসামিরা চরের জমি দখলে নিতে এসে আমার ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের ওপর তান্ডব চালিয়েছে। তারা গরু-মহিষ ও ঘরবাড়ি ভাংচুর লুট করে অন্তত ২৩ লাখ টাকার ক্ষতি করেছে। নদী বেস্টিত হওয়ায় ওই লাঠিয়ালরা চর আবদুল্লাহ ইউনিয়নের অংশে প্রায়ই হামলা চালায়। তাঁদের ভয়ে কেউ মামলা করারও সাহস পায় না।

এ ব্যাপারে বক্তব্য জানতে বিকেলে অভিযুক্ত চাঁদপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ফকরুল আলম জাহাঙ্গীরের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল ও এসএমএস পাঠিয়েও সাড়া মেলেনি।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com