• ঢাকা,বাংলাদেশ
  • মঙ্গলবার | ৯ই মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৪শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | বসন্তকাল | সকাল ৯:৩৯
  • আর্কাইভ

কমলনগরে শিক্ষকের দোকান জবরদখলের অভিযোগ

৯:৫৯ অপরাহ্ণ, জুলা ১৩, ২০২০

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুর কমলনগরের হাজিরহাটে প্রবীন শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমানের ৪৪ বছরের মালিকানা ও দখলীয় দোকান ঘর জবর দখল করার অভিযোগ উঠেছে একাধিক মামলার আসামী ফরহাদ মিয়ার বিরুদ্ধে। সে চর জাঙ্গালিয়া গ্রামের মরহুম এনাম উল্যার ছেলে ।

গত (৮ জুলাই) বুধবার ভোর ৫টায় হাজির হাট বাজারে অবস্থিত দোকানের তালা ভেঙ্গে দোকান দখলে নেয় ফরহাদ। এর আগে তিনি দোকান দখলের পায়তারা করলে ভুক্তভোগী শিক্ষক কমলনগর থানায় ওই দখলকারির বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন বলে জানান।

জানা যায়, ভুক্তভোগী শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান প্রকাশ আবু মাওলানা ৪৪বছর অাগে নালিশী দোকানভিটির জমি খরিদ করেন। তিনি দোকান৷ ঘর নির্মাণ করে এত বছর কোন প্রকার বাধাবিঘ্ন ছাড়া নিরবিচ্ছিন্নভাবে ভোগ দখল করে আসছেন। রামগতি সাব রেজিষ্ট্রি অফিসের রেজিষ্ট্রি দলিল নং-১৬১৯, তারিখ: ১২/৩/১৯৭৬ইং। কমলনগর উপজেলার চরজাঙ্গালিয়া মৌজার পিএস খতিয়ান নং-১৩৯, এম.আর.আর খতিয়ান নং-২০৭, জমাখারিজ নং-১৫৭১/১, দাগ নং-৩০৮৯/ ৩০৯০/ ৩০৯১। এই তিন দাগে মোট ৫৫ শতক সম্পত্তি পিতা মৌলভী লুৎফুর রহমান থেকে ছাপ কবলা নিয়েছেন আবু মাওলানা। নালিশী ভূমির দাগ নং ৩০৮৯,রিভিশন দাগ নং ৬৫২৭/৬৫২৯ এবং ডিবি খতিয়ান নং ৪২২৯। কাগজপত্র পর্যালোচনায়, মোস্তাফিজুর রহমানের মালিকানার সঠিকতা থাকলেও প্রায় চার যুগ পর সম্প্রতি হাজিরহাট বাজারের অবস্থিত তার দোকান ভিটির ওপর লোলুপ দৃষ্টি পড়ে একাধিক মামলার আসামী ফরহাদ মিয়ার। স্থানীয় শালিশ ও আইনকে তোয়াক্কা না করে নালিশী দোকান ঘরের তালা ভেঙ্গে জবর দখল করে নেয় ফরহাদ মিয়া।

ভুক্তভোগী শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান প্রকাশ আবু মাওলানা জানান, দীর্ঘ ৪৪ বছর পূর্বে নালীশি জমি আমি খরিদসূত্রে মালিক হই। ফরহাদ মিয়ার সাথে এ দোকানের ভিটি নিয়ে বিরোধ দেখা দিলে আমি ১৪/৬/২০ইং তারিখে কমলনগর থানায় সাধারণ ডায়েরী করি। এস আই মোশাররফ হোসেন বিষয়টি তদন্ত করেন এবং নালিশী দোকান বন্ধ করে তালা লাগিয়ে উভয় পক্ষকে মিমাংসার জন্য তারিখ নির্ধারণ করেন এবং দোকানের চাবি হাজিরহাট বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক হাজী শাহজাহান মিয়ার জিম্মায় রাখেন। বৈঠক হওয়া আগেই আইনকে অবজ্ঞা করে ৮ জুলাই ২০২০ইং ভোর ৫টায় দোকানের তালা ভেঙ্গে দোকানের দখল নেয় ফরহাদ। আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাধা দিলে ফরহাদ আমাকে মারধর করে। এ ব্যাপারে আমি কমলনগর থানাকে অবহিত করলে থানা কর্তৃপক্ষ আমাকে বিজ্ঞ আদালতে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

আরো জানা যায়, প্রাক্তন শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান প্রকাশ আবু মাওলানা হাজিরহাট বাজার মৌলভী লুৎফুর রহমান জামে মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং কমলনগরে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির দায়িত্বে রয়েছেন। একজন সমাজসেবক হিসেবে এলাকায় তাঁর ব্যাপক পরিচিতি ও সুনাম রয়েছে।

জানতে চাইলে অভিযুক্ত ফরহাদ হোসেন দোকানের মালিকানা দাবী করেন এবং ১৩ বছর পূর্বে ২০০৭ সালে মোমিনুর রহমান থেকে এই ভিটি ক্রয় করেন বলে জানিয়েছেন। ১৯৭৬ সালে পিতা রেজিস্ট্রি দিলে ২০০৭ সালে পুত্র কিভাবে ঐ সম্পত্তি রেজিস্ট্রি দেয়- এমন প্রশ্নের উত্তরে ফরহাদ কোন দলিলের কথা না বলে বলেন- এক পুত্র পেলে অন্যরা পাবে না কেনো?

হাজিরহাট বাজার কমিটির সাধারন সম্পাদক শাহজাহান মিয়া জানান, হাজিরহাট বাজারে দোকান নিয়ে আবু মাওলানা থানায় অভিযোগ করার পর কমলনগর থানার এস আই মোশাররফ হোসেন নালিশী দোকানে তালা দিয়ে চাবি আমার জিম্মায় রাখে এবং মিমাংসার জন্য স্থানীয় বৈঠকের দিন তারিখ নির্ধারণ করে। বৈঠকের পূর্বেই ফরহাদ মিয়া গেল বুধবার ভোরে ওই দোকানের তালা ভেঙ্গে দোকান ঘরে প্রবেশ করেন।

এ বিষয়ে তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই মোশারফ হোসেন জানান,চেষ্টা করেছি দুই পক্ষকে আস্থায় নিয়ে সমাধান করতে। তখন ভূক্তভোগী পক্ষকে দেওয়ানী আদালতের মাধ্যমে সম্পত্তির স্থায়ী সমাধানের পরামর্শ দিয়েছি।

কমলনগর থানার ওসি মুহাম্মদ নুরুল আবছার বলেন, সাধারণ ডায়েরী অনেক হয়, এটাকে আলাদা গুরুত্ব দেওয়ার কিছু নেই। জমিজমার বিষয়ে পুলিশের কিছু করার নেই,এটা আদালতের বিষয়।

এই সম্পত্তিকে কেন্দ্রকরে যেকোন সময় আইনশৃংখলার অবনতির আশংকা করছে হাজিরহাটবাসী।

Spread the love

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ



Design & Developed by Md Abdur Rashid, Mobile: 01720541362, Email:arashid882003@gmail.com